ena
maisha
bioMed

‘যুব সমাজকে জনশক্তিতে রূপান্তর করতে হলে কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর গুরুত্ব দিতে হবে’

ঢাকা, ১৩ মে, এবিনিউজ : চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইদিনব্যাপী ১৫তম আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলন আজ রবিবার শেষ হয়েছে। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান।

বিকাল ৫টায় সিভাসু উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ এর সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত উক্ত সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারতের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান West Bengal University of Animal and Fishery Sciences Gi Vice-Chancellor Prof. Dr. Purnendu Biswas; সিভাসু’র প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য প্রফেসর ড. নীতীশ চন্দ্র দেবনাথ এবং Department of Biotechnology, Pukyong National University, South Korea Gi Prof. Young-Ki Hong|

এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল : ‘বাংলাদেশের মতো একটি মধ্যম আয়ের দেশের টেকসই খাদ্য ব্যবস্থায় মৎস্য ও প্রাণি সম্পদের ভূমিকা’- (Role of Livestock and Fisheries towards a sustainable food system for a middle-income country like Bangladesh)

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমানে যুব সমাজ হলো বাংলাদেশের প্রধান সম্পদ। এই যুব সমাজকে কার্যকর জনশক্তিতে পরিণত করতে হলে সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ে কারিগরি ও বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্ব অত্যধিক। তিনি বলেন, কারিগরি  বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গ্র্যাজুয়েটরাই দেশের ভবিষ্যত চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় উপযোগী হবে।

প্রফেসর আবদুল মান্নান আরও বলেন,  বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ শুধু শ্রেণি কক্ষে পাঠদান নয়, এর বাইরেও অনেক কাজ বিশেষ করে গবেষণাধর্মী কাজে মনোনিবেশ করতে হবে। সেমিনার-সিম্পোজিয়াম, কনফারেন্স আয়োজনের মাধ্যমে জ্ঞান বিনিময়ের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। ইউজিসি’র চেয়ারম্যান বলেন, উচ্চশিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে  বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের উদ্যোগে ২৯টি পাবলিক  বিশ্ববিদ্যালয়কে ইতোমধ্যে বিডিরেন (Bangladesh Research and Education Network) এর আওতায় সংযুক্ত করা হয়েছে। এখন এই ২৯টি  বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বের যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে জ্ঞান বিনিময়ের সুযোগ পাবে। ভবিষ্যতে সকল  বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজগুলোকে এই নেটওয়ার্কের অন্তর্ভূক্ত করা হবে।  

দুুুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক এ সম্মেলনে ভারত, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড ও দক্ষিণ কোরিয়াসহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, গবেষণা প্রতিষ্ঠান, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার প্রায় ২৫০ জন বিজ্ঞানী, গবেষক, শিক্ষাবিদ, পরিবেশবিদ ও বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেন। উক্ত সম্মেলনে মোট ৭টি টেকনিক্যাল সেশনে ১টি মূল প্রবন্ধ এবং ৪৯টি গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয়। সম্মেলনে বিষয়সংশ্লিষ্ট ২৬টি পোস্টার প্রদর্শন করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানের শুরুতে দুইদিনের সম্মেলনে উপস্থাপিত গবেষণা প্রবন্ধের আলোকে প্রণীত সুপারিশমালা উপস্থাপন করা হয়।  

অনুষ্ঠানে ইউজিসি চেয়ারম্যান বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ করেন। পোস্টার প্রদর্শনীতে সেরা পোস্টার প্রেজেন্টারকে ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা জানানো হয়।

এবিএন/ফরিদুজ্জামান/জসিম/এফডি